এক নজরে ‘মহামায়া ইকো পার্ক’ বৃত্তান্ত

তানভীর আলাদিন:  বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম কৃত্রিম হ্রদ মহামায়া লেক।এটি রাঙ্গামাটির শুভলংকে সৌন্দর্যের দিক দিয়ে অতিক্রম করেছে। এমন একটি অসম্ভব সুন্দর পাহাড়ি ছায়া আর লেক এর মিতালি পুর্ন প্রাকৃতিক একটি পরিবেশ।

মহামায়া লেক পর্যটকদের কাছে নাকি নেপালের ফিউয়া লেক এর মত মনে হয়। এটি ১১ বর্গকিলোমিটার আয়তনের একটি বিশাল লেক ও ঝর্ণা রয়েছে। মহামায়া কৃত্রিম লেক ভ্রমণপিপাসু পর্যটকদের রূপে ও মাধুর্যে মুগ্ধ করেছে।

এ লেকটি ফেনী শহর থেকে প্রায় ২০ কিলোমিটার দক্ষিণে আর চট্টগ্রাম শহর থেকে ৬৫ কিলোমিটার উত্তরে মিরসরাই উপজেলার ৮ নম্বর দুর্গাপুর ইউনিয়নের ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ঠাকুরদীঘি বাজার থেকে দেড় কিলোমিটার পূর্বে অবস্থিত।

পাহাড়ের কোলঘেঁষে আঁকাবাঁকা লেকটি অপরূপ সুন্দর। ছোট-বড় অসংখ্য পাহাড়ের মাঝখানে অবস্থিত মহামায়া লেকের অন্যতম আকর্ষণ পাহাড়ি ঝর্ণা। স্বচ্ছ পানির জলাধারের চারপাশ সবুজ চাদরে মোড়া। মনে হয়, কোনো সুনিপুণ শিল্পীর কারুকাজ।

নীলাভ জলরাশিতে ডিঙি নৌকা কিংবা ইঞ্জিনচালিত বোট নিয়ে হারিয়ে যেতে পারেন অপরূপ সৌন্দর্যের মাঝে। বন্ধুবান্ধব, পরিবার-পরিজন নিয়ে পানির কলকল ধ্বনিতে মুখরিত মহামায়া লেকে নৌভ্রমণ অন্যরকম আনন্দদায়ক। মহামায়া লেকের চারপাশে পাহাড়ের বুক চিরে ছুটে চলা আপনাকে বিমুগ্ধ করবে। গৌধূলিলগ্নে সূর্য যখন অন্তিম নীলিমায় ডুবে যায়, তখনকার লেকের পরিবেশ খুবই চমৎকার।

সতর্কতা : লেকের পানিতে বোতল কিংবা অপচনশীল দ্রব্য ফেলবেন না। সাঁতার না জানলে পানিতে নামার দরকার নেই।